ফেনী সদর হাসপাতালে রুগীদের ভোগান্তি চরমে, দেখার কেউ নেই

বিশেষ প্রতিনিধি» ফেনী সদর হাসপাতালে ডাক্তারের শুন্যতার পাশাপশি সংযুক্ত ডাক্তারদের কর্মস্থলে অনুপস্থিতি, অপরিচ্ছন্ন ও দুগন্ধময় পরিবেশে রুগীদের ভোগান্তি চরমে উঠেছে।
ফেনী ২৫০ শয্যার আধুনিক সদর হাসপাতালে ২৫ জন মেডিকেল অফিসারের মধ্যে ১৯ টি পদ ও কনসালটেন্ট ১৮টি পদের মধ্যে ৬টি , নার্স ৮৭ পদের মধ্যে ৩০ টি পদ শুন্য রয়েছে। হাসপাতারের সেবা কার্যক্রম চালু রাখার জন্য ফেনী সিভিল সার্জন অফিস আদেশে বিভিন্ন উপজেলা থেকে ১০ জনকে সংযুক্তি দেয়া হলেও ৪ জন ট্রেনিং এ চলে গেছেন। যে কজন বর্তমানে হাসপাতালে সংযুক্ত রয়েছে তারাও যথা সময়ে নিয়মিত হাসপাতালে আসেন না। কনসালটেন্টগন নিজেদের ইচ্ছামতো হাসপাতালে আসেন যান। ফলে ডাক্তার দেখাতে না পেরে দুরদুরান্ত থেকে আসা রুগীরা চরম হয়রানীর শিকার হচ্ছেন। মাসের পর মাস এসব অনিয়ম চলে আসলেও দেখার কেউ নেই্। সদর থানার বালুয়া চৌমুহানীর আজিজুল হক জানান- তা স্ত্রী আবিদা সুলতানা গর্ভকালীন চিকিৎসার জন্য ফেনী সদর হাসপাতালে আনার পর গাইনি বিভাগেরে জুনিয়ার কনসালটেন্ট তাহিরা খাতুন রোজী তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা না দিয়ে তার  প্রাইভেট হাসপাতালে ( তার চেম্বার) নিয়ে সিজার অপারেশন করে মোটা অংকের টাকা নিয়ে যান। বিষয়টি আজিজুল হক স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকে লিখিত অভিযোগ করে তা ফেনীর সাংবাদিকদের কপি দিয়েছেন। তিনি তার অভিযোগে জানান প্রতিদিন এভাবে হাসপাতাল থেকে তারা প্রইভেট হাসপাতালে রুগী ভাগিয়ে নিচ্ছেন। ফেনী সদর হাসপাতালের আরএমও ডা: অসীম কুমার সাহা জানান রোজী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংযুক্তি নিয়ে ফেনী সদর হাসপাতালে কাজ করছেন। তিনি অভিযোগটি পেয়েছেন। সদর হাসপাতালের দায়িত্বশীল সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান ফেনী সদর হাসপাতালে বিভিন্ন উপজেলা থেকে ফেনী সদর হাসপাতালে সংযুক্তি নিয়ে ডা: গোালাম মোস্তফা, ডা: সাজ্জাদ এবং ফেনী সদর হাসপাতালে পদায়ন হওয়া ডা: রাজিব বিশ্বাস  যথা সময়ে হাসপাতালে আসেন না এবং সরকার নির্ধারিত সময় পর্যন্ত হাসপাতালে থাকেন না। ডাক্তার নেতার হাসপাতালের চেম্বারে বসে তাই কেউ তাদের ব্যাপারে কথা বলেননা। এর ফলে রুগীদের চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। ফেনী সদর হাসপাতাল থেকে হবিগঞ্জ ঊপজেলায় বদলী হওয়া ডাক্তার গোলাম মাওলা স্বস্থ্য অধিদপ্তরের বদলীর আদেশ ২২ মাস হাসপাতালের কর্মচারীদের যোগসাজসে গোপন করে ফেলে ফেনী সদর হাসপাতাল খেকে বেতন ভাতা গ্রহন করে আসছিলো । সম্প্রতি মন্ত্রনালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপতরের অুসন্ধানে বিষয়টি ধরা পড়ে। ফেনী সদর হাসপাতালের সাবেক তত্বাবধায়ক ডা: সারওয়ার জাহান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। ২২ মাস পার ডা: গোলাম মাওলাকে ছাড়পত্র দেয় হয়েছে বলে তিনি জানান।। একই ভাবে ডা: আজিজ উল্লার স্বস্থ্য অধিদপ্তরের বদলীর আদেশ প্রায় ২ মাস হাসপাতালের ফাইা থেকে গায়েব করে ফেলা হয়। এঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃৃপক্ষ ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন আরএমও ডা: অসীম কুমার সাহা।
হাসপাতালের ডাক্তারদের অভ্যন্তরিন কোন্দল আর ঢাকায় মন্ত্রনালয় ও প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে অ

10

নৈতিক সম্পর্কের কারনে ঘনিষ্ঠ র অদ্যাক্ষরের এক সাংবাদিকের অনৈতিক প্রভাব আর লেনদেনে অস্বীকার করে হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা: আনোয়ার হোসেন চাকুরি ছেড়ে দেয়া আবেদন জানিয়ে ১ নভেম্বর থেকে অর্জিত ছুটিতে চলে গেছেন। একই কারনে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আরপি সাহা ও চাকুরী ছেড়ে দেয়া প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন এ প্রতিবেদকের কাছে। আর ফেনী হাসপাতালের তত্বাবধায়ক মোশারফ হোসেন কানে শুনেন না। অনেকটা প্রতিবন্ধী অবস্থায় ৩ মাস পর অবসরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিতে ব্যস্ত থাকায় হাসপাতালের দিকে উদাসিন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের কয়েকজন কর্মকর্তা
ফেনী জেলা ছাড়াও পার্শ্ববর্তী কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম, নোয়াখালীর বসুরহাট, সেবার হাট, চট্টগ্রামে মীরসরাই, খাগড়াছড়ির রামগড় এলাকার মানুষ ফেনী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন। এ ছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর সাথের ৩৫ কি:মি রাস্তায় সড়ক দুর্ঘটনায় আহতদের ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।
ফেনী জেলার ১৬ লাখ মানুষ সহ পাশ্ববর্তী জেলার মানুষের চিকিৎসা সেবা প্রদান করার জন্য ফেনী সদর হাসপাতালের শুন্যপদে ডাক্তার কর্মচারী নিয়োগ, পদায়ন থাকা ডাক্তার কনসালটেন্ট যথাসময়ে উপস্থিত থেকে রুগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য ব্যবস্থা গ্রহনের আদেশ দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ফেনীবাসী।

প্রকাশক সম্পাদক : জাহাঙ্গীর কবির লিটন
এলাহী মার্কেট , ২য় তলা, বড় মসজিদ গলি, ট্রাংক রোড,ফেনী।
jagofeni24@gmail.com
© 2016 allrights reserved to JagoFeni24.Com | Desing & Development BY PopularITLtd.Com, Server Manneged BY PopularServer.Com